-->

Pirates of the Caribbean 1 (2003) New Movie Dual Hd 720p

Pirates of the Caribbean 1 (2003) Full Movie Hd 720p & 1080p

Pirates of the Caribbean Full Movie Information

IMDB Rating: 8.4/10
 Genre: Fantasy, Adventure
Run Time: 726 minutes
Movie Language: English
File Quality: 1080p
Release Year: 2003 to 2017
Release Country: United States
Movie Stars: Ted Elliott, Terry Rossio, Jeff Nathanson, Stuart Beattie, Jay Wolpert.

Pirates of the Caribbean 2003 থেকে 2017 সালের  যুক্তরাষ্টের ইংরেজি-ভাষায় নির্মিত কল্পনা, সাহসিক ছিনেমা। ছিনেমাটির গল্প লিখেছেন টেড এলিয়ট, টেরি রোসিও, জেফ নাথনসন, ক্রেগ মজিন এবং ক্রিস্টিনা হডসন এবং ছিনেমাটি পরিচালনা করেছেন গোর ভার্বিনস্কি, রব মার্শাল, এস্পেন স্যান্ডবার্গ এবং জোচিম রানিং। ছিনেমাটিতে নায়ক হুইল চরিত্রে অভিনয় করেছেন অরল্যান্ডো ব্লুম এবং নায়িকা এলিজাবেদ চরিত্রে অভিনয় করেছেন নাইটলি।সিনেমাটির মোট 5 টি পর্ব। ছিনেমাটি 2003  থেকে 2017 সাল পর্যন্ত এই সিনেমাটি যুক্তরাষ্টের ছিনেমা হলে চালানো হয় । ছিনেমাটির মোট 5 টি পর্বের নির্মাণ বাজেট ছিল $1.274 বিলিয়ন ডলার এবং ছিনেমাটির মোট 5 টি পর্ব বাক্স অফিসে উপার্জন করেছেন $4.524 বিলিয়ন ডলার। এটা প্রথম পর্ব।

Pirates of the Caribbean Full Movie Story


Pirates of the Caribbean সিনেমার শুরুতে দেখা যায়। কুয়াশার মধ্যে থেকে একটা জাহাজ ভেসে আসছে আর ওই জাহাজের ওপর থেকে এলিজাবেদ  নামের একটা বাচ্চা মেয়ে সামুদ্রিক ডাকাতদের গান করছে। এলিজাবেথের ধারণা ছিল সামুদ্রিক ডাকাতরা হয়তো খুব ভালো মানুষ হয়। তখন ওই জাহাজের একজন কর্মচারী এলিজাবেদকে গানটা গাইতে বারণ করে। কারণ সামুদ্রিক ডাকাতরা খুবই খারাপ এবং ভয়ঙ্কর প্রকৃতির মানুষ হয়।  আর সেজন্য ওদেরকে ধরতে পারলে সরকারের তরফ থেকে ওদেরকে সঙ্গে সঙ্গে মেরে ফেলা হয়। 

এবার কিছুক্ষণ পর ওরা খেয়াল করে সমুদ্রের মধ্যে উইল নামের একটা বাচ্চা কাঠের টুকরোর উপর অজ্ঞান হয়ে পড়ে আছে।  আর এটা দেখার পর ওরা সবাই বাচ্চাটাকে জাহাজের উপরে উঠেয়ে আনে। কিছুক্ষণ পর তারা খেয়াল করে একটু দূরেই সমুদ্রের মধ্যে একটা জাহাজে আগুন লাগার কারণে সেটা পুরোপুরি ধ্বংস হয়ে গেছে। কেউ বেঁচে আছে কিনা সেটা দেখার জন্য এই জাহাজ থেকে সবাই সেখানে  যায় । আর তখন এলিজাবেদকে দায়িত্ব দেয়া হয় ওই বাচ্চাটাকে দেখাশোনা করার জন্য। এবার এলিজাবেদ বাচ্চা ছেলেটার কাছে যাওয়ার পর এলিজাবেদ খেয়াল করে তার গলায় সামুদ্রিক ডাকাতের চিহ্ন আঁকানো একটা সোনার কয়েন রয়েছে। যেটা দেখে সে বুঝে যায় উইল একজন সামুদ্রিক ডাকাত। কিন্তু এই পুরো ঘটনাটা সবার কাছ থেকে লুকিয়ে রাখে। আর উলের গলার থেকে ওই সোনার কয়েনটা কে খুলে নিজের কাছে রেখে দেয়। কারণ জাহাজের মধ্যে কেউ যদি এটা জানতে পারে যে উইল জলদস্যু তাহলে ওকে হয়তো সঙ্গে সঙ্গে মেরে ফেলা হবে। 

এরপর দেখা যায় এই ঘটনায় 8 বছর হয়ে গেছে এলিজাবেথ এখন আগের থেকে অনেক বড় হয়ে গেছে আর হুইলের সোনার কয়েনটা এখনো নিজের কাছে রেখে দিয়েছে। এবার এই গল্পের প্রধান চরিত্র ক্যাপ্টেন জ্যাককে দেখানো হয়। জ্যাক একটি  নৌকা নিয়ে ট্রল শহরে বন্দরে আসে। জ্যাক ছিল একজন সামুদ্রিক ডাকাত। কিন্তু তার সঙ্গী-সাথীরা তার সঙ্গে বিশ্বাসঘাতকতা করে। আর ক্যাপ্টেন বারবোসা জ্যাক এর কাছ থেকে ব্লাক পাল জাহাজটা কেড়ে নিয়ে তাকে জাহাজ থেকে একটা ছোট্ট দ্বীপ এর মধ্যে নামিয়ে দেয়। আর তখন ওর সঙ্গে একটা বন্দুক আর একটা মাত্র গুলি দেওয়া হয়। আর জ্যাক ওখানে আসার পর দেখতে পায় ইন্টারসেপ্টর নামে সেনাবাহিনীর একটা যুদ্ধজাহাজ। আর ওখানে পাহারায় থাকা দুজন সেনার সঙ্গে কথা বলতে বলতে যে ওই জাহাজের উপরে উঠে পড়ে।

আর এলিজাবেথ হটাৎ অজ্ঞান হয়ে তার প্রাসাদ থেকে নিচে সমুদ্রের মধ্যে পড়ে যায়। আর জলের মধ্যে পড়ার সঙ্গে সঙ্গে ওর গলায় থাকার সেই সোনার কয়েন থেকে পুরো সমূহ মধ্যে একটা বিশাল বড় কম্পনের সৃষ্টি হয়। আর সঙ্গে সঙ্গে ওখানকার পুরো পরিবেশ বদলে যেতে শুরু করে। তখন জ্যাক তাড়াতাড়ি সমুদ্রের মধ্যে লাফ মেরে এলিজাবেথকে ওখান থেকে তুলে আনে।  আর কিছুক্ষণের মধ্যেই জেমস ওখানে সেনাবাহিনী নিয়ে পৌছে যায়। আর জ্যাককে  গ্রেপ্তার করে নেয়। 

এবার দেখা যায় সেদিন রাতে পুরো শহরের লোক যখন খুমাচ্ছিলো। তখন সমুদ্রের মধ্যে থেকে একটা জাহাজ কামান এর সাহায্যে শহরের মধ্যে বোমা ফেলতে শুরু করে।এই জাহাজটার নাম ছিল বাল্কপায়।  আর দেখা যায়  কিছুক্ষণের মধ্যে ওই জাহাজের ডাকাতগুলো শহরের মধ্যে ঢুকে পুরো শহর লুক চালাতে চালাতে ওরা এলিজাবেথের বাড়িতে পৌঁছে যায়। আসলেই এলিজাবেথের কাছে থাকা ওই সোনার কয়েন তাই এদের দরকার ছিল। সকালবেলা সমুদ্রের জলের সংস্পর্শে আসার পর এই সোনার কয়েন থেকে একটা সংকেত বেরিয়ে পুরো সমুদ্রের মধ্যে ছড়িয়ে পড়ে আর এখন ও সংকেত এর খোঁজ করতে করতেই এই ডাকাত গুলা এখানে পৌঁছে যায়। 

এবার ডাকাতগুলার কাছে পুরোপুরি ধরা পড়ে যাওয়ার পর এলিজাবেথ বলে আমি তোমাদের সরদার এর সঙ্গে কথা বলতে চাই। আর এখন ওদের সরদার এর সঙ্গে কথা বলানোর জন্য ওরা এলিজাবেথকে জাহাজে নিয়ে আসে। আর ওই ডাকাত দলের সর্দার এর নাম ছিল ক্যাপ্টেন বারবোসা। এলিজাবেথ ওই ডাকাত দলের সর্দারের কাছে নিজের পরিচয় বদলিয়ে হুইএল এর পরিচয় ব্যবহার করে। এলিজাবেথ এর এই ভুয়া পরিচয় জানার পর জাহাজের মধ্যে সবাই বলাবলি করতে শুরু করে তবু স্টাফের মেয়ে এবার এলিজাবেথ ওদেরকে বলে আমি তোমাদেরকে কয়েন টা দিয়ে দেবো কিন্তু তার বিনিময় তোমরা এই শহর থেকে চলে যাবে। কখনো এখানে ফিরে আসবেনা। আর বারবোসা ওর কথায় রাজি হয়ে যায়। ওই সোনার কয়েন টা নেওয়ার পর ও নিজের জাহাজ নিয়ে শহর ছেড়ে চলে আসে কিন্তু ওখান থেকে আসার সময় ও এলিজাবেথ কেউ নিজেদের সঙ্গে বন্দি বানিয়ে নিয়ে যায়। 

পরের দিন সকালে উইল জানতে পারে যে ওই ডাকাত গুলো এলিজাবেথকে তুলে নিয়ে গেসে। তাই উইল এবং জ্যাক ওখান থেকে সেনাবাহিনীর একটি জাহাজ চুরি করে এলিজাবেদকে বাঁচাতে যায়। 

এলিজাবেদ ক্যাপ্টেন বারবোসাকে প্রশ্ন করে আমি তো তোমাকে কয়েনটি দিয়ে দিয়েছি তারপর ও তুমি আমাকে আটকে রেখেছো কোনো? তখন ক্যাপ্টেন বারবোসা বলে এই কিন্তু একটি অভিশপ্ত কয়েন। এরোকোন আরো ৪৮০টি কয়েন আমাদের কাছে আসে। আমরা একটি বাক্স থেকে এই কয়েনগুলো চুরি করে ছিলাম কিন্তু চুরি করার পরে জানতে পারি এই কয়েনের উপর অভিশাপ দেওয়া আসে। এই কয়েনে যে হাত দিবে সে ওমর হয়ে যাবে,কিছু খেতে পারবে না এবং মরবেও না। আর এই অভিশাপ থেকে বাঁচার জন্য এই কোয়েনগুলি ওই বক্সে রেখে দিতে হবে এবং যে এই কয়েন চুরি করেছে সাথে তার রক্ত দিতে হবে। আর এইজন্য তোমাকে ধরে নিয়ে যাচ্ছি। কারণ তোমার রক্ত লাগবে। 

এই কথাটা শোনার পর এলিজাবেথ খুবই ভয় পেয়ে যায়। আর সঙ্গে সঙ্গে ওই জাহাজ থেকে পালিয়ে আসার চেষ্টা করে। কিন্তু জাহাজের বাইরে বেরোনোর পর ও দেখতে পায় ওই জাহাজের সমস্ত ডাকাত এখন বদলে গেছে আসলে যখনই ডাকাতদের গায়ের চাঁদের আলো পড়বে তখনই এদের শরীরটা কঙ্কালের মতন একটা ভূতের রূপ ধারণ করবে। অন্য দিকে দেখা যায় জ্যাক ও হুইল নিজের কাছে থাকা একটা ভাঙ্গা কাম্পাস এর সাহায্যে সমুদ্রের মধ্যে ক্যাপ্টেন বারবোসা ও এলিজাবেথকে খুঁজতে শুরু করেছে। বেশ কিছুক্ষণ পর জ্যাক ও হুইল মৃত্যুর দ্বীপে পৌঁছে গেছে। এটা সেই জায়গা ছিল যেখানে বারবোসা আর তার সঙ্গীরা নিজেদের লুট করার সমস্ত সোনাদানা লুকিয়ে রাখত। আর এখন এলিজাবেথকে বন্দি বানিয়ে ওরা এখানে নিয়ে এসেছে। ওরা দেখতে পাই বারো বছর শেষে সোনার বাক্সের মধ্যে শেষ সোনার কয়েন টা ফেরত দিয়ে দেয় আর তার সাথে সাথে ওখানে বলিদান হিসাবে এলিজাবেথ এর হাত থেকে বেশ কিছুটা রক্ত দেয়। কিন্তু ওটা করার পরেও ওদের শরীরে অভিশাপ তখনও রয়ে গেছে।

কারণ এই অভিশাপ কাটাতে গেলে ওখানে তার শরীরের রক্ত বলিদান হিসেবে দিতে হবে। যে ওখান থেকে সোনার কয়েনটা চুরি করেছিল।  আর যেটা ছিল উইল এর বাবা বুটস্ট্রাপ। আর সেজন্য এখানে এলিজাবেথের জায়গায় হুইলের রক্ত বলিদান হিসেবে দিতে হবে। এবার দেখা যায় এত কিছুর পরেও অভিশাপ থেকে মুক্ত হতে না পারার পর ওখানে সমস্ত ডাকাতদের মধ্যে ঝামেলা বেধে গেছে আর সেই সুযোগে ওখান থেকে হুইল এলিজাবেথকে নিয়ে পালিয়ে আসে। 

আর বেশ কিছুক্ষণ পর বারবোসা পিছন দিক থেকে উলের জাহাজকে ধরে ফেলে।  আর এখানে এই দুটো দলের মধ্যে বেশ ভয়ঙ্কর একটা যুদ্ধ বেধে যায়। আর একটা সময় বারবোসা আর ওর সঙ্গীরা এই যুদ্ধটা জিতে যায়। আর ওই যুদ্ধ চলাকালীন সমস্ত ডাকাতরা জানতে পারে হুইল এর রক্ত দিয়ে তারা নিজেদের অভিশাপ থেকে মুক্তি হতে পারবে। সে জন্যই হুইলকে কারাবন্দি বানিয়ে আবার মৃত্যুর দ্বীপের দিকে ফিরিয়ে নিয়ে যাওয়ার সময় জ্যাক ও এলিজাবেথকে সমুদ্রের মধ্যে একটা ছোট্ট দ্বীপ এর মধ্যে নামিয়ে দেয়। এলিজাবেথ দ্বীপের মধ্যে বেশ কয়েকটা শুকনো কাঠের টুকরা আগুন লাগিয়ে দেয়। 

আগুনের ধুয়া দেখে জেমস নরিন তার নিজের সেনাবাহিনী নিয়ে এলিজাবেথকে বাঁচানোর জন্য এখানে পৌঁছে যায়। এবার এলিজাবেথ ও জ্যাক দুজন মিলে পুরো ঘটনা জেমসকে খুলে জানায়। হুইলকে তারা বাঁচাতে যায়। আর ওখানে ক্যাপ্টেন বারবোসা ডাকাতদলের সঙ্গে জেমসের সেনাবাহিনীর যুদ্ধ বেধে যায়। কিন্তু যেহেতু অভিশাপের কারণে ওই ডাকাতগুলো শরীর অমর হয়ে গেছিল সে জন্য ওদের সঙ্গে যুদ্ধ করা খুবই মুস্কিল হয়ে যাচ্ছিল। যুদ্ধ চলাকালীন জ্যাক সুজুগ বুঝে বন্দুক দিয়ে ক্যাপ্টেন বারবোসাকে গুলি করে দেয়। 

তখন বারবোসা বলে তুমি দশ বছর ধরে এগুলিটাকে নিজের কাছে গুজে রেখেছিলি আর আজকে এভাবেই এটাকে নষ্ট করে ফেললে। তখন পিছন দিক থেকে উইল বলে জ্যাক গুলীটাকে নষ্ট করিনি। আর এই কথাটা বলার পর ওর নিজের হাতের রক্ত ওই সোনার বাক্সের মধ্যে দিয়ে দেয়। যে কারণে ঐ সমস্ত ডাকাতের শরীর থেকে অভিশাপ সঙ্গে সঙ্গেই নষ্ট হয়ে যায়। আর এখন নিজের মানব শরীরে ফিরে আসার পর ক্যাপ্টেন বারবোসা ওখানে মারা যায়। 

আর এইভাবে আজ 10 বছর পর জ্যাক নিজের প্রতিশোধ নিল কিন্তু দেখা যায় ওর বাকি সমস্ত সঙ্গী-সাথীরা ওর জাহাজটা নিয়ে ওখান থেকে পালিয়ে গেছে। আর সেজন্য জেমস ওকে নিজের সঙ্গে গ্রেফতার করে নিয়ে আসে এবার কয়েকদিন পর দেখা যায় জ্যাক সামুদ্রিক ডাকাত হওয়ার কারণে জ্যাককে ফাঁসি দিতে যায়। আর তখনই হুইল এসে তাকে বাঁচায়। জ্যাক সমুদ্রে লাফ দেয় আর কিছুক্ষন পরে তার সঙ্গী সাথীরা ওই জাহাজটাকে নিয়ে জ্যাককে বাঁচাতে আসে। আর এখানেই সিনেমাটির প্রথম পর্ব শেষ হয়ে যায়।

|| Pirates of the Caribbean Movie Link ||


প্রথমে https://link.hazabhai.com/2021/08/Pirates-of-the-caribbean1-movie-download.html ← এই .লিংকটি.কপি করে নিয়ে যেকোনো ব্রউজারে যেমনঃ- Chrome , UC-browser ইত্যাদি ব্রাউসারের উপরের সার্চ বারে সার্চ করলেই মুভিটি পেয়ে যাবেন।

LihatTutupKomentar